অপরূপ রাঙামাটির সাজেক ভ্যালী

অভি বড়ুয়া

বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ভারতের মিজোরাম রাজ্যের সীমান্তবর্তী পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বেষ্টিত ও অপার সম্ভাবনার জনপদ সাজেক। সমতল ভূমি থেকে প্রায় ৩ হাজার ফুট উচু পাহাড়ের চূড়ায় সাজেক অবস্থিত।

সাজেকের সুউচ্চ পাহাড়ে দাঁড়ালে যে কেউ চলে যাবেন আকাশের কাছাকাছি। কল্পনাবিলাসী মনের অজান্তে হাত চলে যেতে পারে দূরের আকাশ ধরতে। আর নিচের দিকে তাকালে ভাবনা আসতেই পারে কিভাবে উঠলেন এতো উপরে!

সেখানে আকাশ আর পাহাড়ের অপূর্ব মিতালী দেখে হয়ত মনের অজান্তে বলে উঠবেন- আরো আগে আসা উচিত ছিল। সৃষ্টিকর্তার এক অপূর্ব সৃষ্টি সাজেক। দেশের সর্ব বৃহৎ ইউনিয়ন সাজেক। আয়তন ৬০৭ বর্গ মাইল। যা দেশের অনেক জেলার চেয়েও বড়। লোক সংখ্যা মাত্র হাজার দশেক।

সাজেকের রয়েছে, ঢেউ খেলানো অসংখ্য উচ্চ-নিচু পাহাড় বেষ্টিত হৃদয়গ্রাহী সবুজ বনানী পূর্ণ। সর্বত্র ছড়িয়ে রয়েছে নয়নাভিরাম নানান দৃশ্য। পাহাড়ের বুক চিরে আপন মনে বয়ে চলেছে কাচালং ও মাচালং সহ নাম না জানা অসংখ্য নদ-নদী। রাস্তার দুধারে-চোখে পড়বে উপজাতীয়দের বসত বাড়ি বিচিত্র জীবন ধারা। সৃষ্টিকর্তার নিপুন সৃষ্টি আর সেনাবাহিনীর হাতের ছোঁয়ায় সাজেক ধারণ করেছে নৈসর্গিক সৌন্দর্য।

কিভাবে আসবেন সাজেকেঃ
বাংলাদেশের যেকোন স্থান থেকে ঢাকা অথবা চট্টগ্রাম আসবেন। ঢাকার কমলাপুর এবং চট্টগ্রামের অক্সিজেন মোড় থেকে শান্তি, এস আলম, সৌদিয়া, শ্যামলী, ঈগল-এদের যে কোন পরিবহনে রাতে অথবা দিনে খাগড়াছড়ি আসা যায়। খাগড়াছড়ি থেকে দিঘীনালা হয়ে ভাড়ায় চালিত যে কোন গাড়ি করে ১২০-১৫০ মিনিটের মধ্যে পৌঁছানো যাবেন সাজেকে।

মন্তব্য