পুতিনের যুদ্ধ-নীতির বিরুদ্ধে হলিউড

|

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভোরে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করার পর হলিউডসহ বিশ্বের বিনোদন জগতের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিরা বিষয়টি নিয়ে কথা বলছেন। যাদের মধ্যে আছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, মার্ক রাফালো, রায়ান রেনল্ডস, ডেভিড লিঞ্চ এবং হেইডেন প্যানেটিইয়ারসহ অনেক হলিউড তারকাই সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্চার হয়েছেন। দিয়েছেন যুদ্ধবিরোধী বার্তাও।

অভিনেতা রায়ান রেনল্ডস বাস্তুচ্যুত ইউক্রেনের শরণার্থীদের সাহায্যের জন্য ইউএন রিফিউজি এজেন্সিতে দান করতে লোকদের উৎসাহিত করতে টুইটারে পোস্ট করেছেন। তিনি টুইট করে লিখেছেন, ‘৪৮ ঘণ্টার মধ্যে, অগণিত ইউক্রেনীয়কে তাদের বাড়িঘর ছেড়ে প্রতিবেশী দেশে পালাতে বাধ্য করা হয়েছে। তাদের সুরক্ষা দরকার।’

পরিচালক ডেভিড লিঞ্চ একটি দীর্ঘ বিবৃতিতে পুতিনের নিন্দা করেছেন। ‘মি পুতিন, মানুষ হিসাবে আমরা অভিযুক্ত। আমরা আমাদের বন্ধু দেশের মানুষের সঙ্গে কীভাবে আচরণ করি তা নিয়ে প্রকৃতির একটি আইন রয়েছে। এটা একটি কঠিন এবং দ্রুত আইন যার জন্য কোনো ফাঁক নেই। এবং এটা থেকে পালানো যায় না, এবং এই আইনটি আপনি যেভাবে প্রয়োগ করবেন সেভাবেই ফল পাবেন। রেকর্ড করা একটি ভিডিওতে তিনি এসব কথা বলেছেন। তিনি আরও বলেন, ‘এই মুহূর্তে আপনি মৃত্যু ও ধ্বংসের বীজ বপন করছেন। এই দায় আপনার একার। ইউক্রেনীয়রা আপনার দেশে আক্রমণ করেনি। আপনি ঢুকে গিয়ে তাদের দেশে আক্রমণ করেছেন। এই সমস্ত মৃত্যু এবং ধ্বংস আপনার দিকেই ফিরে আসবে।

অ্যাঞ্জেলিনা জোলি তার ইনস্টাগ্রামে ইউএনএইচসিআরকে সমর্থন করে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। জোলি সেখানে বলেন, ‘আপনাদের অনেকের মতো আমিও ইউক্রেনের মানুষের জন্য প্রার্থনা করছি। এই অঞ্চলে বাস্তুচ্যুত এবং উদ্বাস্তুদের সুরক্ষা এবং মৌলিক মানবাধিকার নিশ্চিত করার জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করা হয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যেই হতাহতের খবর দেখেছি এবং মানুষ নিরাপত্তার জন্য তাদের বাড়ি ছেড়ে পালাতে শুরু করেছে। কী ঘটবে তা জানা যাবে খুব দ্রুতই, তবে এই মুহূর্তে- ইউক্রেনের জনগণের জন্য এবং আন্তর্জাতিক আইনের শাসনের জন্য বাড়াবাড়ি করা ঠিক হবে না।’

অভিনেত্রী হেইডেন প্যানেটিয়ের, ইনস্টাগ্রামে পুতিনের পদক্ষেপকে ‘একটি পরম অপমানজনক’ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি একটি পোস্টে লিখেছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে ইউক্রেনের জনগণের শক্তি প্রত্যক্ষ করেছি। তারা তাদের স্বাধীনতার জন্য কঠিন লড়াই করেছেন। এবং বছরের পর বছর ধরে তাদের দেশকে রক্ষা করে চলেছেন।’ তিনি বলে আরও বলেছেন, ‘ইতিহাসের এই মুহূর্তটি একটি ভয়ঙ্কর বার্তা পাঠায়। এই যুগে মুক্ত মানুষের অধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে এবং পুতিনের মতো স্বৈরাচারীরা যা খুশি করতে চাচ্ছে। ইউক্রেনে আমার পরিবার এবং বন্ধুরা রয়েছে। তারা লড়াই করছে। আমি তাদের জন্য প্রার্থনা করছি। আপনারা ইউক্রেনের জনগণের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করুন এবং গণতন্ত্রের প্রতি আপনার সমর্থন দেখান।’

অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ইউক্রেনের পরিস্থিতিকে ‘ভয়াবহ’ বলে উল্লেখ করেছেন। বিশেষ করে সেই অঞ্চলে বসবাসকারী নিরীহ মানুষের জন্য। তিনি তার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে লিখেন ‘আধুনিক বিশ্বে কীভাবে এমন ভয়াবহ পর্যায়ে বাড়তে পারে তা বোঝা কঠিন, তবে এর পরিণতি ভালো হওয়ার কথা নয়।’




Leave a reply