নয়াদিল্লির উপর ক্ষুব্ধ কিয়েভ, সীমান্তে ভারতীয়দের বাধা ইউক্রেনের সেনার

|

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন থেকে দেশে ফিরতে মরিয়া ভারতীয়রা। প্রচণ্ড ঠান্ডা ও লড়াইয়ের মধ্যে প্রাণ বাঁচাতে রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড ও স্লোভাকিয়া সীমান্তের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। তাদের মধ্যে রয়েছেন বহু ভারতীয়। অভিযোগ, ইউক্রেনীয়দের সহজেই সীমান্ত পেরতে দেওয়া হলেও বেছে বেছে ভারতীয়দেরই আটকে দিচ্ছে ইউক্রেনের সেনা।

যুদ্ধ শুরু হওয়ার কিছুদিন আগেও ইউক্রেনে ভারতীয় নাগরিকের সংখ্যা ছিল প্রায় ২০ হাজার। এদের অনেকেই আবার ডাক্তারি শিক্ষার্থী। তবে রাশিয়া পূর্ণ যুদ্ধ ঘোষণা করার আগেই দেশে ফেরেন অন্তত হাজার চারেক ভারতীয়। তারপরই যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরাতে ‘অপারেশন গঙ্গা’ শুরু করে মোদি সরকার। যেহেতু ইউক্রেনের আকাশসীমা বন্ধ তাই প্রতিবেশি রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড ও স্লোভাকিয়া হয়ে ভারতীয়দের ফেরানোর কাজ চলছে। বলে রাখা ভাল, এই চারটি দেশই ইউক্রেনের সঙ্গে সীমান্ত ভাগ করে।

জানা যাচ্ছে, পোল্যান্ড সীমান্তে জড়ো হয়েছেন বহু ভারতীয়, তার মধ্যে রয়েছেন ডাক্তারি শিক্ষার্থীরাও। দিল্লিতে অবস্থিত পোল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত টুইট করেছেন, ‘ভারতীয় ছাত্রছাত্রীদের ভিসা ছাড়াই ঢুকতে দিচ্ছে পোল্যান্ড।’ যারা পোল্যান্ডের কর্মকর্তাদের কাছে পৌঁছতে পারছেন তারা জানিয়েছেন, এই কথা সত্যি। কিন্তু সেই পর্যন্ত যেতেই দেওয়া হচ্ছে না অধিকাংশ ভারতীয়কে। সমস্যা সৃষ্টি করছে ইউক্রেনের সীমান্তরক্ষীরা। সেখান থেকে ঠেলে ইউক্রেনের দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে ভারতীয়দের।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, আতঙ্ক ছড়াতে বার বার শূন্যে গুলি ছোঁড়া হচ্ছে। প্রায় ৩৬ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পরেও ভিসার লাইন থেকে টেনে টেনে ভারতীয়দের বার করার অভিযোগও রয়েছে। এমনকি ভারতীয়দের জমায়েত লক্ষ্য করে গাড়ি ছুটিয়ে এগিয়ে আসার অভিযোগও উঠেছে সেনার বিরুদ্ধে। মারধর এবং লাথিও নাকি চলেছে মুহুর্মুহু। রোমানিয়া সীমান্তের পরিস্থিতিও প্রায় এক। সেখানেও ভিড় বাড়ছে ভারতীয়দের। শুধু সেনা নয় আম ইউক্রেনীয়রাও ভারতীয়দের প্রতি ক্ষুব্ধ।

বিশ্লেষকদের মতে, জাতিসংঘে ভারতের অবস্থানের জন্যই ক্ষুব্ধ কিয়েভ। ফলস্বরূপ ভোগান্তির মুখে পড়তে হচ্ছে সেদেশে থাকা ভারতীয়দের। গত শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ইউক্রেন নিয়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পেশ করে আমেরিকা। সেই প্রস্তাবে ভোট না দিয়ে কার্যত রাশিয়ার পাশেই দাঁড়ায় ভারত। তারপর রোববার আন্তর্জাতিক মঞ্চে আবারও রাশিয়ার পাশেই এসে দাঁড়ায় ভারত। ইউক্রেন ইস্যুতে জাতিসংঘের সাধারণ সভার একটি বিশেষ অধিবেশন ডাকার জন্য প্রস্তাব পেশ হয়। সেই প্রস্তাবে ভোটদান থেকে বিরত থাকে নয়াদিল্লি।




Leave a reply