কুমারী লতা মঙ্গেশকরের রেখে যাওয়া ৩৭০ কোটি টাকার সম্পত্তি পাবেন কারা

|

ভারতের ইন্দোরে জন্মগ্রহণ করেন লতা মঙ্গেশকর। রোববার ৬ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর। সেই ১৩ বছর বয়স থেকে উপার্জন শুরু। মারাঠি সিনেমায় অভিনয় ও গান করেন। সেই বছরই হারান বাবাকে। তারপর থেকে পরিবারের ভরণ-পোষণের সমস্ত দায়িত্ব তুলে নিয়েছিলেন নিজের কাঁধে। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি বড়। ছোট তিন বোন হলেন উষা, মীনা আর আশা। আর ভাই হৃদয়নাথ।

প্রথমবার উপার্জন করেছিলেন মাত্র ২৫ টাকা। বর্তমানে তিনি প্রায় ৩৭০ কোটির মালিক। সাথে রয়েছে কিছু শৌখিন গাড়িও। গানের রয়্যালিটি থেকে মাসে ৪০ লক্ষ টাকার কাছাকাছি আয় করতেন সুর-সম্রাজ্ঞী। বছরে পেতেন প্রায় ৬ কোটি টাকা। কিছু রিপোর্ট দাবি করেছে ‘কোকিলকণ্ঠী’র মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৩৭০ কোটি। দক্ষিণ মুম্বাইয়ের পশ এলাকায় থাকতেন। পেডার রোডে অবস্থিত প্রভাকুঞ্জ ভবনে থাকতেন লতা মঙ্গেশকর। যদিও কোটিপতি হয়েও তিনি ছিলেন মাটির মানুষ। দিদির মতো, মায়ের মতো কাছে টেনে নিতে পারতেন সবাইকে।

শৌখিন গাড়ি কেনার শখ ছিল লতার। তার বাড়ি ‘প্রভুকুঞ্জে’র গ্যারাজে ছিল একসময় অনেক দামি দামি গাড়ি। বহু সাক্ষাৎকারে গাড়ির প্রতি নিজের ভালবাসাও ব্যক্ত করেছেন বহুবার। ক্যারিয়ারের শুরুতেই কিনেছিলেন একটি শেভরলে। যশ চোপড়া তাকে উপহার দিয়েছিল একটি মার্সেডিজ। তার একটি ক্রিসলার গাড়িও ছিল।

মুঝে ভুলা না পাওগে…..’। গানের মধ্যে দিয়েই চোখের জলে সুরসম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকরকে শেষবিদায় জানানো হল মুম্বইয়ে। লতা মঙ্গেশকরের ভাইপো আদিনাথ মঙ্গেশকর শেষকৃত্যের আচার পালন করলেন। তিনি লতা মঙ্গেশকরের ভাই হৃদয়নাথ মঙ্গেশকরের ছেলে। মুম্বাইয়ের শিবাজি পার্কে আয়োজন করা হয়েছিল শেষকৃত্যের। রাষ্ট্রীয় সম্মান দিয়ে জানানো হয় শেষ বিদায়।




Leave a reply