মুখে খাবার তুলে দিলো ইউক্রেনীয়রা, কান্না করলেন রাশিয়ান সেনা

|

রুশ সেনাদের প্রতিরোধে প্রথম ধাপে বিদেশি সেনারা ইউক্রেন পৌঁছেছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি এই তথ্য জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেন, রাশিয়ার আক্রমণ প্রতিরোধে ইউক্রেনকে সহায়তা করতে প্রথম ধাপে বিদেশি যোদ্ধারা পৌঁছেছেন।

এদিকে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে আগ্রাসন চালাচ্ছে রাশিয়া। এই আগ্রাসনে ইতোমধ্যেই অনেক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। রুশ আগ্রাসনে সামরিক ব্যক্তির পাশাপাশি প্রাণ হারিয়েছেন অনেক বেসামরিক নাগরিকও। সম্প্রতি ইউক্রেনের কতিপর বেসামরিক নাগরিকের হাতেই ধরা পড়েছেন এক রুশ সেনা।

এরপর ওই রুশ সেনার সাথে ঠিক কী হতে পারে ভাবুন তো! নিশ্চয়ই ভাবছেন, নিজেদের মাতৃভূমিতে রাশিয়ার এমন আগ্রাসনের ক্ষোভ ওই সেনার উপর ঝেরেছেন ইউক্রেনীয়রা? কিন্তু না। ইউক্রেনীয়রা সেটা করেননি।

ইউক্রেনীয়দের হাতে ধরা পড়া ওই রুশ সেনাকে উল্টো খেতে দিয়েছেন তারা, দিয়েছেন মায়ের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ। আর ইউক্রেনবাসীর এমন আতিথেয়তায় রীতিমতো আবেগে ভেসেছেন রাশিয়ার ওই সেনাসদস্য।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এমন একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। দুই দেশের মধ্যকার রক্তক্ষয়ী সংঘাতের মধ্যেও এমন ভিডিও বিশ্ববাসীর কাছ থেকে দারুণ প্রশংসা কুড়াচ্ছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, ধরা পড়া রুশ সেনাকে বার্গার জাতীয় খাবার খেতে দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে দেওয়া হয়েছে চা। আর তাকে ঘিরে আছেন একদল ইউক্রেনবাসী।

এরপর ধরা পড়া ওই রুশ সেনাকে তার মায়ের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলারও সুযোগ করে দেন স্থানীয় জনগণ। এসময় চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে মায়ের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় তাকে। মায়ের সঙ্গে কথা বলার সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন ওই রুশ সেনা।




Leave a reply