প্রয়াত কেকের ঠোঁট ও কপালে আঘাতের চিহ্ন!

|

কলকাতায় গানের শো করতে এসে মারা গেছেন বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক কেকে। মঙ্গলবার রাত ৯টায় শহরের একটি হোটেল থেকে মুমূর্ষ অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা কেকে’কে মৃত ঘোষণা করেন। প্রাথমিকভাবে চিকিৎসকরা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গায়ক মারা গেছেন জানালেও ক্রমেই ঘনিভূত হচ্ছে রহস্য। কারণ, কেকের ঠোঁটে ও কপালে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

কলকাতার একাধিক সংবাদমাধ্যম এমনই খবর প্রকাশ করেছে। যদিও প্রয়াত শিল্পী এবং তার পবিবারের গোপনীয়তার স্বার্থে তার মৃতদেহের সেই ছবি প্রকাশ করেনি সংবাদমাধ্যমগুলো। তবে চিকিৎসকরা এটাও ধারণা করছেন, অচেতন হয়ে হোটেলে পড়ে যাওয়ার কারণে কেকের ঠোঁটে ও কপালে আঘাত লাগতে পারে।

মঙ্গলবার রাতে এই গায়কের শেষ মুহূর্তে ঠিক কী ঘটেছিল, তা খতিয়ে দেখতে কলকাতার ধর্মতলার পাঁচতারা ওই হোটেলের শিফট ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হবে হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজও। হোটেলের অন্য কর্মীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ। কথা বলা হবে অনুষ্ঠানের আয়োজক এবং নজরুল মঞ্চের কর্মীদের সঙ্গেও।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম থেকে সবশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, কলকাতা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মুরলিধর শর্মা এই মুহূর্তে ওয়েরয় গ্র্যান্ড হোটেলে রয়েছেন। সেখানেই গত দুই দিন ধরে ছিলেন বলিউড গায়ক কেকে। হোটেলের সিসিটিভি ফুটেজ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে।

মনে করা হচ্ছে, ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকের জেরে মৃত্যু হয়েছে কেকের। তবে আসল কারণ খতিয়ে দেখতে পরিবারের অনুমতি নিয়ে ময়নাতদন্ত করা হবে শিগগিরই।

মঙ্গলবার রাতে কলকাতার নজরুল মঞ্চে প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে শো করেন কেকে। সেখানেই তিনি অসুস্থ বোধ করেন। ফিরে যান হোটেলে। সেখানে ভক্তরা ছবি তোলার আবদার করলে গায়ক আপত্তি জানান। এর কিছুক্ষণ পরই তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। নেওয়া হয় হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি।

কেকের মৃত্যুর খবর পেয়ে ইতোমধ্যে কলকাতায় এসেছেন তার স্ত্রী জ্যোতিকৃষ্ণ এবং সন্তানরা। গায়কের মৃত্যুকে গভীর শোক জানিয়েছেন ভারতের সকল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তারকারা। শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীও। কেকের এমন অকাল প্রয়াণে শোকে বিহ্বল বাংলাদেশের অনেক ভক্তও।




Leave a reply