জেনে নিন বয়ঃসন্ধির ব্রণ ভোগাচ্ছে খুব? দাগ মেটাতে কী-কী করবেন

|

সেলেব্রিটি ফ্রাশন ডিজাইনার মাসাবা গুপ্তা সম্প্রতি তাঁর কিশোর বয়সের একটি ছবি শেয়ার করেছেন ইনস্টা স্টোরিতে। সেখানে তিনি তাঁর সেই সময়ের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন, যখন তিনি ব্রণর সমস্যায় ভুগছিলেন। বয়স মাত্র ১২, তখন থেকেই ব্রণর জন্য আয়না দেখা বন্ধ করে দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তিনি হাল ছাড়েননি। মাসাবা জানান, প্রায় ১৪ বছর ধরে তিনি ব্রণর সমস্যায় ভুগছিলেন। তারপর এখন তিনি নিখুঁত ত্বকের অধিকারী।

কিশোর বয়সে ব্রণর সমস্যায় শুধু যে মাসাবা ভুগেছিলেন তা নয়। এই বয়সে কম-বেশি প্রতিটা ছেলে-মেয়ে এই সমস্যার সম্মুখীন হন। এই বিষয় নিয়ে সেভাবে চিন্তার কোনও কারণ নেই। সাধারণত হরমোনের ভারসাম্য পরিবর্তনের কারণে এই সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়াও অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকও কিশোর বয়সে ব্রণর পিছনে দায়ী। অনেক সময় ভিটামিনের অভাবেও এই সমস্যা দেখা দেয়।

মেয়েদের অনেক ক্ষেত্রে ঋতুচক্র শুরুর ঠিক আগে বা ওই সময় ব্রণর সমস্যা দেখা দেয়। এটাও ঘটে হরমোনের প্রভাবে। ওই সময় সিবেসিয়াস গ্রন্থি অতিমাত্রায় সক্রিয় হয়ে যায়, যার ফলে দেখা দেয় ব্রণ। কিন্তু কিশোর বয়সে ব্রণর কারণ নিয়ে বেশি মাথা ঘামায় না কেউ। তবে এই ঘটনা মানসিক প্রভাব ফেলে কম বয়সি ছেলে-মেয়েদের উপর। কারণ ব্রণ যে শুধু মুখের সৌন্দর্য নষ্ট করে তা নয়। এর পাশাপাশি ত্বক লাল হয়ে ওঠে, ত্বকে জ্বালাভাব দেখা দেয়। এই সমস্যা বেশি বেদনাদায়ক হয় এই বয়সে। তার ওপর ব্রণর সমস্যা দূর হয়ে গেলেও ব্রণর দাগ রয়ে যায়। তবে এমন নয় যে আপনি এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পারবেন না। বিশেষ কিছু টিপস মেনে চললেই মুশকিল আসান হবে।

কিশোর বয়সে ব্রণর সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য প্রথমত ডায়েটের দিকে নজর দিতে হবে। এখনকার কম বয়সি ছেলেমেয়দের মধ্যে অতিরিক্ত তেলে ভাজা খাবার, ফাস্ট ফুড খাওয়ার চল বেশি। ত্বককের যত্ন নিতে গেলে এই অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে। ডায়েটের পাশাপাশি লাইফস্টাইলেও পরিবর্তন আনতে হবে। প্রচুর পরিমাণে জল পান করুন। স্ক্রিন টাইম কম করতে হবে। আর দরকার পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম।




Leave a reply