রাতে বিছানায় শুলেই জাপটে ধরবে ঘুম! মনে রাখুন এই ১০ টিপস

|

ঘুমের অভাব যে কোনও মানুষের জীবনে ডেকে আনতে পারে বড়সড় সমস্যা। তাই ভালো ঘুম (Sleep) হওয়া ভীষণই জরুরি। এক্ষেত্রে এই ১০ উপায়ে আনুন চোখে ভালো ঘুম। আসুন জেনে নেওয়া যাক।

পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব হলে শরীরে দেখা দিতে পারে নানা সমস্য়া।
ডায়াবিটিস থেকে শুরু করে প্রেশার, কোলেস্টেরলের মতো সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়।
পাশাপাশি ঘুমের অভাব হলে মানসিক নানা সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কাও থাকে।
ঘুম (Sleep) আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ প্রয়োজনীয়। ঘুম শুধু আমাদের ক্লান্তি থেকে মুক্তি দেয় না, ঘুমের সময় শরীরে সেরে ফেলে নানা জটিল কাজ। এই সময়ে শরীর নিজেকে সারিয়ে তুলে আমাদের আগামীদিনের জন্য তৈরি করে রাখে। তাই বিশেষজ্ঞরা বারবার আমাদের ঠিক সময়ে এবং পর্যাপ্ত ঘুম ঘুমাতে বলেন।

তবে আমরা আর কার কথা শুনি। বর্তমান জীবনযাত্রায় সারাদিন লেগে রয়েছে দৌড়। সকালে উঠে থেকে শুরু হচ্ছে কাজ। শেষ হচ্ছে সূর্য ডুবলে। তারপর রয়েছে বাড়ির কাজ। এই গোটা রুটিনে ঘুমের জন্য সময় কেবল রাতের বেলা। তবে রাতেও বহু মানুষের চোখে আসতে চায় না ঘুম। এক্ষেত্রে অনিদ্রার কারণ হতে পারে অনেক।

ঘুমের অভাব
পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব হলে শরীরে দেখা দিতে পারে নানা সমস্য়া। এক্ষেত্রে ডায়াবিটিস থেকে শুরু করে প্রেশার, কোলেস্টেরলের মতো সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। পাশাপাশি ঘুমের অভাব হলে মানসিক নানা সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কাও থাকে। এক্ষেত্রে কাজ করতে ভালো না লাগা, খিটখিট করা, কাজে মন না দিতে পারে, উৎকণ্ঠা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই ঘুম হল আমাদের ভীষণই জরুরি।

তবে অনেক কারণেই মানুষের চোখের পাতা জুড়াতে চায় না। সেক্ষেত্রে মেনে চলুন এই টিপস (Tips for Good Night Sleep)-

১. সকালে ঘুম থেকে ওঠার ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা পর সূর্যের দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থাকুন। ঠিক একইভাবে বিকেলে সূর্য ডোবার আগে সূর্যের দিকে তাকান। আশা করছি সমস্যা কমবে।
২. যখনই ঘুম আসবে চোখে, সেই সময়েই ঘুমাতে যান। দেরি করবেন না। এছাড়া প্রতিদিন একই সময়ে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন।
৩. ঘুমানোর ৪ থেকে ৫ ঘণ্টার মধ্যে কফি খেতে যাবেন না। কফি পান করলে ঘুমে সমস্যা হয়।
৪. ঘুমের সমস্যা থাকলে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ মতো সেলফ হিপনোসিজম করতে পারেন।
৫. রাতের দিকে খুব জোরালো কোনও আলো, যেমন এলইডি আলোর দিকে তাকাতে যাবেন না।
৬. দিনের বেলায় ৯০ মিনিটের বেশি সময় ঘুমানো যাবে না।

৭. রাতে ঘুম ভেঙে গেলে উঠে যাবেন না। বরং শুয়ে থেকে রেস্ট নিন। আশা করছি আবার ঘুম চলে আসবে।
৮. ঘুমানোর ১ ঘণ্টা আগে থেকেই দূরে থাকুন মোবাইল, টিভির থেকে।
৯. ঘুম না আসলে বই পডুন। বই পড়লে ঘুম আসতে সুবিধে হয়।
১০. শোয়ার ঘর হতে হবে অন্ধকার। এই ঘরে যতটা সম্ভব কম আলো কম প্রবেশ করাই ভালো।




Leave a reply