ফেস রিডিংয়ের মাধ্যমে মানুষ চিনুন! জেনে নিন সহজ নিয়ম

|

ব্যক্তির মুখের মধ্যে তাঁরা সমস্ত জীবন ফুটে ওঠে এবং প্রত্যেককে সে বিষয় গর্ব বোধ করা উচিত। মুখ ব্যক্তির জীবন সম্পর্কে অনেক কিছু জানিয়ে থাকে। জ্যোতিষ শাস্ত্রের অপর শাখা সামুদ্রিক শাস্ত্র অনুযায়ী ব্যক্তির মুখ থেকে তাঁর ভূত, ভবিষ্যৎ ও বর্তমান জানা যায়।

আমরা অনেকেই মুখ দেখে লোক চেনার চেষ্টা করি। তবে অনেক ক্ষেত্রেই অসফল থেকে যাই। এখানে কারও মুখ দেখে তাঁকে কী ভাবে চেনা যাবে, সে বিষয় কয়েকটি সাধারণ নিয়ম জানানো হল। এই নিয়মগুলি মেনে চললে সেই ব্যক্তি সম্পর্কে ধারণা করা যাবে।

১. ফেস রিডিং নামে পরিচিত হলেও, শরীরের অন্য অংশ বিচার না-করে এ ক্ষেত্রে যথাযথ ফলাফল পাওয়া যাবে না। শুধু মুখই নয়, কোনও ব্যক্তির চালচলন, কথাবার্তার ধরণ, অভিব্যক্তি তাঁদের ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে জানিয়ে থাকে। আবার অনেক সময় ব্যক্তি কোনও প্রতিক্রিয়া জানায় না, তবে এঁদের মনের ভিতরে সমস্ত কিছু চলতে থাকে। তাই সেই ব্যক্তির শারীরিক ভাবভঙ্গির পুঙ্খানুপুঙ্খ বিচার করা উচিত।

২. মুখের অভিব্যক্তি ও প্রতিক্রিয়া ফেস রিডিংয়ের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। কোনও ব্যক্তি মন থেকে আনন্দিত না দুঃখী, তা সহজে বোঝা যায় না। তাই বিভিন্ন দিক সম্পর্কে গভীর অন্তর্দৃষ্টি ব্যক্তিকে চিনতে সাহায্য করে।

৩. আবার ব্যক্তির শরীরের বিভিন্ন অংশ, মুখ তাঁদের সম্পর্কে জানতে সাহায্য করে। যেমন ললাট ব্যক্তির ভাগ্য ও বিলাসিতার প্রসঙ্গে অনেক কিছু জানিয়ে থাকে। চওড়া ললাট সৌভাগ্যের প্রতীক। এমন জাতকের জীবনে অর্থ ও ভাগ্যের কোনও অভাব থাকে না। আবার চোখের মধ্যে দেখে ব্যক্তির আবেগ ও মনোভব সম্পর্কেও জানা যায়।

৪. অন্য দিকে ব্যক্তির কথাবার্তার ধরণ দেখে তাঁদের স্টাইল ও চরিত্র সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করা যায়। আবার ব্যক্তি নিজের জীবনে যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও স্বচ্ছতা মেনে চলে, তা-ও তাঁর কথাবার্তার ধরনেই প্রকাশিত হয়। মনে রাখবেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার অভাবে জীবনে আনন্দ ও সমৃদ্ধি থাকে না। আবার ফেস রিডিংয়ের ক্ষেত্রে আচরণের প্রতি লক্ষ্য রাখাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এর মাধ্যমে জানা যায় যে, ব্যক্তি কতটা সৎ, অনুগত অথবা অসৎ। আচরণ ব্যক্তির অভ্যন্তরের ব্যক্তিত্বকেও সকলের সামনে তুলে ধরে।




Leave a reply