৩০০ সেনাসহ দু’টি রুশ সামরিক বিমান ভূপাতিত!

|

রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রপথে ইউক্রেনে হামলা চালাচ্ছে। এই হামলায় ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ দেশটির বিভিন্ন শহরে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র বৃষ্টির মতো আঘাত হেনেছে । ইউক্রেনও সক্ষমতা অনুযায়ী পাল্টা আঘাত করছে।

পাল্টাপাল্টি এই হামলার মধ্যেই নতুন দাবি সামনে এনেছে ইউক্রেন। দেশটির দাবি, রাশিয়ার দু’টি বড় পরিসরের সামরিক বিমান ভূপাতিত করেছে তারা।

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ভূপাতিত করা এই বিমান দু’টিতে ৩০০ জন পর্যন্ত রুশ সেনা অবস্থান করছিলেন। তবে গুলি করে ভূপাতিত করা এই দু’টি সামরিক বিমানের আরোহীদের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা এখনও জানা যায়নি।

শুক্রবার রাতে ইউক্রেনের সরকার দাবি করে, প্যারাট্রুপার বহরকারী রাশিয়ার দু’টি সামরিক বিমান ভূপাতিত করেছে তারা। রাজধানী কিয়েভের উপকণ্ঠে বিমান দু’টিকে গুলি করে নামানো হয়। তবে বিমান ভূপাতিতের ঘটনায় হতাহতের কোনো তথ্য সামনে আনেনি দেশটি।

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, শুক্রবার কিয়েভের ২০ মাইল দক্ষিণে অবস্থিত ভ্যাসিলকিভের কাছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর আইএল-৭৬ মডেলের একটি বিমান গুলি করে ভূপাতিত করেছে।

এ ছাড়া বেলারুশের সংবাদমাধ্যম নেক্সটা জানিয়েছে, ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ থেকে ৫০ মাইল দক্ষিণে অবস্থিত বিলা সেরকভা এলাকায় রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর আইএল-৭৬ মডেলের আরেকটি বিমানকে গুলি করে ভূপাতিত করা হয়।

আইএল-৭৬ মডেলের এই বিমানগুলো ১৯৭৪ সালে ব্যবহার করা শুরু হয় এবং এগুলো মাঝারি পাল্লার সামরিক পরিবহন বিমান হিসেবেই পরিচিত। চার ইঞ্জিনবিশিষ্ট এই বিমানটি পরিপূর্ণ সামরিক সরঞ্জামে সজ্জিত ১৫০ থেকে ২২৫ জন সেনা বহন করতে সক্ষম। মূলত প্যারাট্রুপারদের যুদ্ধে ময়দানে নামানো এবং যুদ্ধরত সেনাদের জন্য পুনরায় অস্ত্র সরবরাহ করার কাজে এই ধরনের বিমান ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি রাশিয়া ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান চালাচ্ছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ভোরে এই হামলা শুরু হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের প্রথম দেশ হিসাবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রপথে ইউক্রেনে সবচেয়ে বড় হামলা চালাচ্ছে।




Leave a reply