ইউক্রেনে আটকে থাকা ১৮ হাজার ভারতীয়দের যে পরামর্শ দিলেন মোদি সরকার

|

আটকেপড়াদের উদ্দেশে ইউক্রেনের ভারতীয় দূতাবাসের পরামর্শ, পরিস্থিতি বেগতিক হলে গুগল ম্যাপ দেখে কাছের নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যান।
ইউক্রেনের ভূগর্ভস্থ মেট্রো স্টেশনগুলি বোমা হামলা থেকে বাঁচার ক্ষেত্রে বিশেষ কার্যকরী হতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে সদ্য জারি হওয়া নির্দেশিকায়।

আনন্দবাজার জানায়, বৃহস্পতিবার ভারতীয় সময় অনুযায়ী সকালে রাশিয়া যুদ্ধ ঘোষণা করার পরেই আকাশপথ বন্ধ করে দেয় ইউক্রেন। যার জেরে ইউক্রেনে আটকেপড়া ভারতীয়দের দেশে ফিরিয়ে আনার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউক্রেনে এখনও অন্তত ১৮ হাজার ভারতীয় আটকা পড়েছেন।

এর আগে ইউক্রেনে আটকে থাকা ভারতীয় শিক্ষার্থীদের ফেরানো হচ্ছিল এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে।

ক্রিমিয়া হয়ে ইউক্রেনে প্রবেশ করেছে রুশ সামরিক যান। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকালে বেলারুশ সীমান্ত ক্রসিং থেকে লাইভস্ট্রিম ভিডিওতে ইউক্রেনে সৈন্য ও সামরিক যানের সারি দেখানো হয়েছে।

যুদ্ধবিধ্বস্ত এ পরিস্থিতিতে ভারতীয় শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস তিরুমূর্তি।

যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় ভারতীয় নাগরিক ও শিক্ষার্থীদের দেশে ফেরাতে উদ্যোগী হয় কেন্দ্র সরকার।

ইউক্রেন-রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার ভোরে এক টেলিভিশন বক্তৃতায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের দোনবাস তথা ডোনেটস্ক ও লুহানস্কে সেনা অভিযানের ঘোষণা দেন।

এরপরই দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়। বিবিসি জানায়, ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের পাঁচ থেকে ছয়টি স্থানে বিস্ফোরণের বিকট শব্দ শোনা গেছে।

পূর্ব ইউক্রেন সীমান্তে রাশিয়ার লাখো সেনা মোতায়েন নিয়ে উত্তেজনা চলছিল বেশ কিছুদিন ধরে। গত সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) পূর্ব ইউক্রেনকে স্বাধীন ঘোষণার পর রাশিয়ার ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে পশ্চিমা দেশগুলো।




Leave a reply