স্বামীকে হারিয়ে সমাধির পাশে বসে আছেন ৩ দিন

|

স্বামীকে হারিয়ে তিন দিন ধরে তার সমাধির পাশে বসে শুধুই বিলাপ করছেন পারুলি বালা (৫৫)। এই তিন দিনে তিনি শুধু পানি ছাড়া কিছুই খাননি বলে জানিয়েছেন তার পুত্রবধূ বিউটি বালা। পারুলি বালা গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার রামশীল ইউনিয়নের খাগবাড়ী গ্রামের গ্রামের নকুল বালার স্ত্রী।

বুধবার সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেশী বিপুল বালার ছেলে শিশির বালা (২০) আরো কয়েকজনকে নিয়ে নকুল বালাকে (৬০) পিটিয়ে আহত করে। গুরুতর আহত নকুল বালাকে তার পরিবারের লোকজন প্রথমে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এনে ভর্তি করে। এখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকদের পরামর্শে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় গত রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তিনি মারা যান। এরপর ময়নাতদন্ত শেষে সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় নকুল বালাকে তার নিজ বাড়িতে সমাহিত করা হয়। সেই থেকেই নকুল বালার স্ত্রী পারুলি বালা স্বামীর সমাধির পাশে বসে বিলাপ করছেন।

নকুল বালার পুত্রবধূ বিউটি বালা বলেন, ‘ঘটনার দিন শিশির বালা তার বাড়িতে উচ্চ স্বরে গান বাজাচ্ছিল। এ সময় আমার শ্বশুর শিশিরকে নিষেধ করলে সে লোকজন নিয়ে আমার শ্বশুরকে পিটিয়ে আহত করে। এরপর এক সপ্তাহ চিকিৎসা শেষে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় শিশিরসহ ছয়জনকে আসামি করে আমরা কোটালীপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি। আমি আমার শ্বশুর হত্যার বিচার চাই।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোটালীপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. জাকারিয়া বলেন, মামলাটি বর্তমানে তদন্তাধীন। তবে এই মামলার একজন আসামি পলাতক ও পাঁচজন জামিনে রয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।




Leave a reply