অটোফ্যাগি কিভাবে আপনাকে সুস্থ্য রাখে দেখুন?

|

না খেয়ে থাকা কি ভালো? সবাই জানে, সুস্থ্য থাকার জন্য শরীরের প্রয়োজনীয় উপদানগুলো সবসময় গ্রহণ করতে হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক কালে বিজ্ঞান বলছে মাঝে মাঝে না খেয়ে থাকাও অনেক ভালো। এতে শরীরের বিভিন্ন সমস্যা নিজে থেকেই সমাধান হয়ে যায়; এমনকি ক্যান্সারের মত প্রাণঘাতী রোগ থেকেও মানব দেহ রক্ষা পায়। কিভাবে হয় ব্যপারটা বুঝতে হলে আপনাকে জানতে হবে অটোফ্যাগি (Autophagy) বা স্ব-ভক্ষণ নামের প্রক্রিয়াটি।

অটোফ্যাগি শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ ‘অটো’ এবং ‘ফ্যাগি’ থেকে। প্রথমটির অর্থ নিজে এবং দ্বিতীয়টির অর্থ খাওয়া। অটোফ্যাগি এক দৈহিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে কোষগুলো তার বর্জ্যকে ব্যবহার করে শক্তি উৎপাদন করে থাকে। সেই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত ও মৃতপ্রায় কোষ থেকে দেহকে পরিত্রাণ পেতেও সহায়তা করে। আর অটোফ্যাগি প্রক্রিয়াটি ঘটে মাঝে মাঝে খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকলে। যেমনটা রোজার সময় ঘটে থাকে। তখন পুষ্টির অভাবে কোষ নিজের মধ্যকার বর্জ্য ব্যবহার করে। ফলে কোষের ভেতরটা পরিষ্কার হয়ে যায়। আবার মৃতপ্রায় কোষগুলোকে মেরে ফেলে সেখানে নয়া কোষের গঠন সম্পন্ন হয়। এভাবে দেহের কোষগুলো নবজীবন লাভ করে। এই অটোফ্যাগি নিয়ে গবেষণা করে চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন জাপানের বিজ্ঞানী ইয়োশিনোরি ওশুমি।

এই প্রক্রিয়া জীব দেহকে সুস্থ রাখার পাশাপাশি অল্পবয়সে বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে। আর সবচেয়ে বেশি অটোফ্যাগি হয় উপোস থাকা অবস্থায়। মানে আপনি যখন টানা দীর্ঘ সময় (সাধারণত দিনের একটা বড় অংশ) খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকেন। বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, অটোফ্যাগির সমস্যার কারনে যেহেতু ডায়াবেটিস , পারকিনসন্স এমনকি ক্যান্সার (Cancer) পর্যন্ত হয়; তাই এই আবিষ্কারকে কাজে লাগিয়ে ডায়াবেটিকস, জিনবাহী রোগসহ বহু দুরারোগ্য ব্যাধির চিকিৎসা আবিষ্কার করা সম্ভব হতে পারে।








Leave a reply