জেলেনস্কির সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ফোনালাপ

|

প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের মুখপাত্র বিবিসিকে জানিয়েছেন, বরিস জনসন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি ও ইউক্রেনের জনগণের অসাধারণ বীরত্ব ও সাহসিকতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, দুই নেতা একমত হয়েছেন যে, পুতিনকে ইউক্রেনে বড় ধরনের প্রতিরোধের মুখে পড়তে হবে।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যাতে রাশিয়াকে কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে একঘরে করে রাখে, সেই প্রয়োজনীয়তার বিষয়েও তারা একমত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের মুখপাত্র।

রাশিয়াকে সুইফট থেকে সরানোর বিষয়ে যে সম্মতি বাড়ছে, সে বিষয়টিকে তারা স্বাগত জানিয়েছেন।

সুইফট হচ্ছে আন্তর্জাতিক এক ধরনের পেমেন্ট সিস্টেম। ইউক্রেনে হামলার পর থেকে যুক্তরাজ্যসহ বেশ কয়েকটি দেশ রাশিয়াকে সুইফট থেকে বাদ দেওয়ার বিষয়ে একমত পোষণ করছে। তবে ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ এ বিষয়ে একমত হতে পারেনি।

এদিকে নেদারল্যান্ডস, চেক প্রজাতন্ত্র এবং ফ্রান্সও অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম ইউক্রেনে পাঠাচ্ছে। শনিবার ফ্রান্সের নৌবাহিনী ইংলিশ চ্যানেলে রাশিয়ার একটি পণ্যবাহী জাহাজ আটকে দিয়েছে। ‘বাল্টিক লিডার’ নামের জাহাজটি গাড়ি নিয়ে রাশিয়ার পিটার্সবুর্গে যাচ্ছিল। ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়ার উপর নতুন করে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে তার আওতায় রাশিয়ার জাহাজটি আটকে দেওয়া হয়।

রাশিয়ার আগ্রাসনের নিন্দা জানাতে শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে একটি খসড়া প্রস্তাব এনেছিল যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়া সেই প্রস্তাবে ভিটো দিয়েছে। তাদের মিত্র চীন, ভারত ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ভোটদানে বিরত ছিল।

নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের পর জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস আবারও রুশ সেনাদের ব্যারাকে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।




Leave a reply